Communication Information of Tourism or Parjatan Place of Sylhet | Bangla Printing View

Important Tourism Information of Bangladesh

Tourism or Parjatan Communication Information of Sylhet District, Bangladesh
by md. abidur rahman | parjatanbd | A Home of Tourism
Information Collected By :  Ashaduzzaman Babu | আসাদুজ্জমান বাবু

Beautiful Sylhet  | Description | Bangla  | English | Spanish | Tourism Information |   Union Weblink | Communication | Famous Local Food

Link of Communication Information

Barisal | Chittagong  | Dhaka | Khulna | Mymensing 
Rangpur | Rajshahi | Sylhet

Bangla | English

 
বাংলাদেশের সিলেট জেলার ভ্রমণ স্থানের যোগাযোগের বর্ণনার লিংক এখানে দেয়া আছে। ভ্রমণকারী ভ্রমণ স্থানে ভ্রমণ করতে ইচ্ছে পোষণ করলে এখান থেকে তথ্য নিয়ে ভ্রমণ করতে পারবে। এর ফলে রওনার পৃর্বেই তারা সে স্থানের যাতায়াত সম্পর্কে অবগত ও সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারবে। তথ্যই সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ার মূল সহায়ক।

 

  ভ্রমণ স্থানের নাম ভ্রমণ স্থানে যাওয়ার বর্ণনা বা কিভাবে যাবেন
মালনীছড়া চা বাগান
সিলেট শহর থেকে রিকশায বা অটোরিকশা বা গাড়িতে বিমানবন্দর রোডে চাবাগানটি দেখা যাবে। গাড়িতে যেতে আম্বরখানা পয়েন্ট থেকে ১০ মিনিট এর পথ। রিকশায় যেতে আধঘন্টা সময় লাগবে।
লাক্কাতুরা চা বাগান
সিলেট রেল স্টেশন অথবা কদমতলী বাস স্ট্যান্ড এ নেমে রিকশা বা সিএনজি অটোরিকশাযোগে লাক্কাতুরা চা বাগান ঘুরা যাবে।  
ভোলাগঞ্জ
সিলেট থেকে ৩৩ কিমি দূরত্বে ভোলাগঞ্জের অবস্থান। সরাসরি যাতায়াত ব্যবস্থা নেই। সিলেট থেকে পাবলিক বাস বা সিএনজি বেবীট্যাক্সি করে টুকের বাজার পর্যন্ত, এরপর টুকের বাজার থেকে আবার বেবীট্যাক্সি করে ভোলাগঞ্জ যেতে হবে। বিশেষ কোয়ারীতে যেতে হলে নদী তীরে অবস্হিত পোস্টের বিডিআরএর অনুমতি নিতে হবে। ইঞ্জিন নৌকায় যেতে হয় কারণ পাথর উত্তোলনের জন্য এই নৌকাগুলো ব্যবহৃত হয়। এতে মাঝিদের প্রচুর আয় হয়। ফলে মানুষ পরিবহন করতে হলে পাথর পরিবহনের সমান ভাড়া না পেলে তারা ভাড়া খাটতে রাজী হয় না। বিশেষ কোয়ারীতেও বিডিআর পোস্ট রয়েছে। তাদের নলেজে রেখে সীমান্ত এলাকা ঘোরাফেরা করা শ্রেয়। সিলেট শহর থেকে সড়ক দূরত্ব কম হলেও রাস্তার কারণে সময় লাগবে প্রায় দেড় ঘন্টা।
সোনাতলা পুরাতন জামে মসজিদ
সিলেট আম্বর খানা থেকে সিএনজিতে তেমুখি এসে সোনাতলার সিএনজিতে পুনরায় উঠে এ মসজিদে আসা যাবে। থেমুখি-শিবের বাজার রাস্তার মধ্যে এটি অবস্থিত।
লালাখাল
সিলেট জাফলং মহাসড়কে শহর থেকে প্রায় ৪২ কিমি দূরে সারীঘাট। সারীঘাট থেকে নৌকা নিয়ে লালাখাল যাওয়া যায়। স্থানীয় ইঞ্জিনচালিত নৌকায় একঘন্টা পনেরো মিনিটের মতো সময় লাগে সারী নদীর উৎসমুখ পর্যন্ত যেতে। নদীর পানির পান্না সবুজ রঙ আর দুইপাশের পাহাড় সারির ছায়া মুগ্ধ করার মত। উৎসমুখের কাছাকাছিই রয়েছে লালাখাল চা বাগান। সারীঘাট থেকে স্থানীয় নৌকা নিয়ে লালাখাল যেতে যাওয়া যাবে। আর নাজিমগড় বোট স্টেশনের বিশেষায়িত নৌকায় যাওয়া যাবে।   গাড়ী নিয়ে লালাখাল চলে গেলে রিভারকুইন রেস্টুরেন্ট থেকে আধাঘন্টার জন্য নৌকায় যাওয়া যাবে।
মালিনী চড়া বাগান
সিলেট সদর উপজেলার ৩ নং খাদিম নগর ইউনিয়নে অবস্থিত। সিলেট সিটি কর্পোরেশনের আম্বর খানা থেকে বিমান বন্দর রাস্থার মধ্যে উল্লেখিত চা বাগান টি অবস্থিত। সিএনজিতে আসা যাবে।
জাফলং
সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলায় অবস্থিত। সিলেট জেলা সদর হতে সড়ক পথে দুরুত্ব মাত্র ৫৬ কি.মি। সিলেট থেকে বাস, মাইক্রোবাস, সিএনজিচালিত অটোরিক্স্রায় যাওয়া যাবে জাফলং। সময় লাগবে ১.৩০ ঘন্টা। সিলেটে থেকে বাস, মাইক্রোবাস, সিএনজি অটোরিকশা বা লেগুনায় যাওয়া যায় জাফলংয়ে। জাফলং যেতে জনপ্রতি বাসভাড়া পড়বে ৮০ টাকা। সিলেট শহরের যে কোনো অটোরিকশা বা মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড থেকে গাড়ি রিজার্ভ করে যাওয়া যাবে ।
রায়ের গাঁও হাওর
সিলেট সিটি কর্পোরেশনের আম্বর খানা থেকে হাটখোলা ইউনিয়নে শিবের বাজার। সেখান থেকে সিএনজিতে রায়ের গ্রামে গিয়ে হেটে   রায়ের গাঁও হাওর যাওয়া যাবে।
শ্রী শ্রী দুর্গা বাড়ী মন্দির ও ইকো পার্ক।
শ্রী শ্রী দুর্গা বাড়ী মন্দির যেতে হলে শাহী ঈদগাহ থেকে এম.সি কলেজ রোডে এসে বালুচর পয়েন্টের দিকে যাতায়ত করলে শ্রী শ্রী দুর্গা বাড়ী মন্দির পাওয়া যাবে। ইকো পার্ক যেতে হলে এম.সি কলেজ রোড থেকে পুর্ব-দক্ষিনে দিকে ইঞ্জিনিয়ারিং রোডে যাতায়ত করলে ইকো পার্ক যাওয়া যাবে।
ফেঞ্চুগঞ্জ সার কারখানা
ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা হতে প্রায় ০৫ কিলোমিটার দক্ষিণে সিলেট-মৌলভীবাজার হাইওয়ে রোডের পূর্ব দিকে হাইওয়ে রোড হতে ০১ কিলোমিটার দূরে ফেঞ্চুগঞ্জ সার কারখানা অবস্থিত।
এডভেঞ্চার ওয়ার্ল্ড
সিলেট সিটি থেকে ওসমানী আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরের রাস্তায় উক্ত পার্কের অবস্থান। সিলেট আম্বর খানা মসজিদের পূর্ব থেকে অটোরিক্সায় এডভেঞ্চার ওয়ার্ল্ডে আসা যাবে। ।
হজরত শাহপারান (রঃ) মাজার
গাবতলী এবং সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে বাস গুলো সকাল থেকে মধ্যরাত  পর্যন্ত কিছু সময় পরপর ছেড়ে যায়৷ ঢাকার ফকিরাপুল, সায়দাবাদ ও মহাখালী বাস স্টেশন হতে সিলেটের বাসগুলো ছাড়ে। গ্রীন লাইন পরিবহন, সৌদিয়া, এস আলম পরিবহন, শ্যামলি পরিবহন ও এনা পরিবহনের এসি বাস চলাচল করে।   এছাড়া শ্যামলী পরিবহন, হানিফ এন্টারপ্রাইজ, ইউনিক সার্ভিস, এনা পরিবহনের পরিবহনের নন এসি বাস সিলেটে যায়।  এনা পরিবহনের বাসগুলো মহাখালী থেকে ছেড়ে টঙ্গী ঘোড়াশাল হয়ে সিলেট যায়। সিলেট রেল স্টেশন অথবা কদমতলী বাস স্ট্যান্ড এ নেমে রিকশা বা সিএনজি অটোরিকশাযোগে মাজারে যাওয়া যায়।
বিছনাকান্দি
বর্ষাকালে সড়কপথে মাইক্রোবাস কিংবা সিএনজি চালিত অটোরিক্সায় ও ইঞ্জিনচালিত নৌযানে অথবা সাধারণ নৌকা সমন্বয়ে যেতে পারবেন। শুকনো মৌসুমে- সড়ক পথে বিছনাকান্দি যাওয়ার একাধিক পথ রয়েছে। তবে সুবিধাজনক পথ মূলত একটিই। বিমানবন্দরের দিকে এগিয়ে ডানে মোড় নিয়ে সিলেট- কোম্পানীগঞ্জ রোডে সালুটিকর, সালুটিকর থেকে এগিয়ে ডানে মোড় নিয়ে বঙ্গবীর, বঙ্গবীর থেকে কিছুদূর গিয়ে বামে মোড় নিয়ে হাদারপাড় বাজার। হাদারপাড় বাজার হতে বিছনাকান্দি একেবারেই পাশে। এখান থেকে স্থানীয় নৌকা নিয়ে বিছনাকান্দি যাওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। বিছনাকান্দি পর্যন্ত গাড়ী পৌছায় না। সিলেট এর যেকোন স্থান থেকে বিশেষত আম্বরখানা থেকে হাদারপাড় পর্যন্ত ভাড়ায় সিএনজি পাওয়া যায়।
জাকারিয়া সিটি
সিলেট শহর থেকে প্রায় ১১ কিমি দূরে জাফলং রোডে খাদিমনগরে ৩টি টিলার সমন্বয়ে গড়ে উঠেছে এই সিটি। রিকশায বা অটোরিকশা বা গাড়িতে জাকারিয়া সিটিতে আসা যাবে।
রাতারগুল
ঢাকা হতে সড়ক, রেল কিংবা আকাশ পথে সিলেট ও সিলেট থেকে যে কোন যানবাহনে সহজেই রাতারগুল যাওয়া যাবে। সিলেট শহর হতে যেতে সিলেট রেল স্টেশন অথবা কদমতলী বাস স্ট্যান্ড এ সিএনজি বা অটোরিকশায় ১.৩০ ঘন্টার মত সময়ের মধ্যে পৌছে যাবেন। দূরত্ব হচ্ছে কদমতলী বাস স্ট্যান্ড থেকে ২৬ কি.মি.।
সোনাতলা পুরাতন জামে মসজিদ
সিলেট আম্বর খানা থেকে সিএনজিতে তেমুখি, এরপর সোনাতলার সিএনজিতে পুনরায় উঠে  এই মসজিদে আসা যাবে। থেমুখি-শিবের বাজার রাস্তার মধ্যে এর অবস্থান।
হাকালুকি হাওর
সিলেট বাসস্টেশন হতে বাস, মাইক্রোবাস, অটোরিক্সায় করে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা সদর যাওয়া যায়। ৪০মিনিট থেকে ১ ঘন্টা সময় লাগবে। ফেঞ্চুগঞ্জ সদর থেকে অটোরিক্সায় করে ঘিলাছড়া জিরোপয়েন্ট যাওয়া যাবে। সদর থেকে দূরত্ব প্রায় ৬ কিলোমিটার। সিলেট থেকে সরাসরি মাইক্রোবাস ভাড়া মূলত সময়ের উপর নির্ভর করে। সিলেট সদর থেকে প্রায় ২৮ কিলোমিটার এর দূরত্ব। ভ্রমণের উপযুক্ত সময় হ চ্ছে এপ্রিল-অক্টোবর পর্যন্ত । প্রয়োজনে ফেঞ্চুগঞ্জ জেলা পরিষদের ডাক বাংলোতে অবস্থান করতে পারেন অথবা ফেঞ্চুগঞ্জ সারকাখানর আওতাধীন ভিআইপি সুবিধা সম্মিলিত রেস্ট হাউস অব স্থান করতে পারবেন। এছারা ভাল থাকার ব্যবস্থার জন্য সিলেট চলে এসে অবস্থান করতে পারবেন।
লোভাছড়া পাথর কোয়ারী
সিলেট থেকে প্রথমে বাসে কানাইঘাট উপজেলা সদর আসতে হবে। তারপর নৌকা ঘাটে এসে ইঞ্জিন নৌকার মাধ্যমে লোভাছড়া পাথর কোয়ারী পৌঁছাতে পারবেন।
মালনি ছড়া চা বাগান
সিলেট রেল স্টেশন অথবা কদমতলী বাস স্ট্যান্ড এ নেমে রিকশা বা সিএনজি অটোরিকশাযোগে লাক্কাতুরা চা বাগান ঘুরা যাবে।  
 

 

 

 

Welcome